• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ৩ মাঘ ১৪২৭
  • ||
  • আর্কাইভ

ব্রেকিং নিউজ

সাক্ষীরা বলছেন ডাকা হয় না, রাষ্ট্রপক্ষ ‘খুঁজে পাওয়া যায় না’

প্রকাশ:  ২৪ নভেম্বর ২০২০, ১৬:৪২
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

রাজধানীর অদূরে আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরের তাজরীন ফ্যাশনসে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দায়ের করা মামলাটির আট বছরেও কোনো কূলকিনারা হয়নি। আলোচিত মামলাটির সাক্ষীদের বিরুদ্ধে আদালতের ‘জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা’ জারি রয়েছে। এরপরও তাদের আদালতে উপস্থিত করা যাচ্ছে না।

অগ্নিকাণ্ডে আহত শ্রমিকরা বলছেন, মামলার বিষয়ে তাদের কেউ কিছু জানায় না। সাক্ষ্য দিতে ডাকা হয় না। ডাকলে অবশ্যই সাক্ষ্য দিতে যেতাম। অন্যদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা বলছেন, রাষ্ট্রপক্ষ সাক্ষীদের আদালতে উপস্থিত করছেন না। সাক্ষী আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় মামলাটির বিচার কার্যক্রম দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে আছে।

ঢাকার আশুলিয়ায় তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ডের অষ্টম বার্ষিকী মঙ্গলবার। ২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর তাজরীন ফ্যাশনসে আগুন লেগে ১১২ জন শ্রমিক নিহত হন। আহত হন অন্তত ২০০ শ্রমিক। নিহত শ্রমিকদের অনেকেরই পরিচয় নিশ্চিত হতে না পেরে তাদের মরদেহ অজ্ঞাতনামা হিসেবে জুরাইন কবরস্থানে দাফন করা হয়। পরবর্তী সময়ে ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে অনেকের মরদেহ শনাক্ত করে তাদের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আলোচিত ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলার বিচারকাজ চলছে ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে। মামলাটির বিচারকাজ শুরু হওয়ার পর পাঁচ বছর পার হয়েছে। পাঁচ বছরে ১০৪ সাক্ষীর মধ্যে সাক্ষ্য দিয়েছেন মাত্র আটজন। রাষ্ট্রপক্ষ দাবি করছে, সাক্ষীদের বর্তমান ঠিকানায় অধিকাংশকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। যেসব সাক্ষীর স্থায়ী ঠিকানা দেয়া হয়েছে তারা সঠিকভাবে আদালতের সমন পাচ্ছেন না।

ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আব্দুল মান্নান খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দায়ের করা মামলাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মামলার অভিযোগপত্রে অধিকাংশ সাক্ষীর বর্তমান ঠিকানা দেয়া হয়েছে। তবে বর্তমান ঠিকানায় অনেককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। যেসব সাক্ষীর স্থায়ী ঠিকানা দেয়া হয়েছে, তারা সঠিকভাবে আদালতের সমনও পাচ্ছেন না। তাদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পরও পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না।’