• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০
  • ||
  • আর্কাইভ

ফরিদগঞ্জের সকদিরামপুর সপ্রাবির ৭৫ বছরপূর্তি উৎসব

বিদ্যালয়টি থেকে দেশকে আলোকিত করা অনেক গুণী মানুষ শিক্ষাগ্রহণ করেছে

---------মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী

প্রকাশ:  ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:৫৬
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

 ‘থাকিবে যে যেখানে, বাঁধন আছে প্রাণে প্রাণে’-এই স্লোগানকে সামনে রেখে ফরিদগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সকদিরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৭৫ বছর পূর্তি ও প্রবীণ-নবীন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়নের সকদিরামপুর গ্রামে প্রতিষ্ঠিত এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠে ১০ ফেব্রুয়ারি শনিবার দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য এই আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে।
স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এবং ৭৫ বছর পূর্তি ও মিলনমেলা উদ্যাপন পরিষদের আহ্বায়ক মোঃ হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ও প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সদস্য (পিএসসির সদস্য) ও সাবেক সিনিয়র সচিব মোঃ মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী। তিনি বলেন, এই বিদ্যালয়টি রত্নপ্রসবা। এই বিদ্যালয় থেকে দেশকে আলোকিত করা অনেক গুণী মানুষ প্রাথমিক শিক্ষা সম্পন্ন করেছেন। আমি এই বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র হিসেবে নিজেও আজ গৌরাবান্বিত। আজকের এই অনুষ্ঠান না হলে অনেকেই জানতে পারতো না এই বিদ্যালয়টি কত গুণী মানুষের শিক্ষা জীবন শুরুর কারখানা ছিলো। আমাদের মনে রাখা উচিত, শিক্ষার মূল স্তরই হচ্ছে প্রাথমিক। প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে আমরা যদি একজন শিক্ষার্থীকে সঠিকভাবে পরিচর্যা করতে পারি, তবে তার সামনের পথগুলো মসৃণ হয়। বর্তমানে সরকার শিক্ষাকে কর্মমুখী করার চেষ্টা করছেন। এটি সফল হলে আমরা আর বেকারত্ব দেখবো না। তাই শিক্ষাকে এগিয়ে নিতে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ জরুরি।  
তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যেই স্বপ্ন দেখেছিলেন, তার সফল বাস্তবায়ন করে চলছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী তাঁরই সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা। এক সময়ে এই বিদ্যালয়সহ দেশের অনেক বিদ্যালয়ের অবস্থাই ছিল ভগ্নদশা। কিন্তু আজ দেখুন কত পরিবর্তন হয়েছে। তেমনি আমাদের  শিক্ষা ক্ষেত্রেও গুণগত পরিবর্তন নিয়ে আসতে হবে। তবে আমরা বলতে পারবো, এই দিনকে আমরা নিয়ে যাবো সেই দিনেরই কাছে। তথা জাতির পিতার সোনার বাংলার প্রতিচ্ছবি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশে। অর্থাৎ স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষা ক্ষেত্রে গুণগত পরিবর্তন জরুরি।
জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষক হাফেজ আহম্মেদ ও আহসান হাবিব নেভীর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোস্তাফিজুর রহমান, চাঁদপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌলি মন্ডল, শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আজিজুর রহমান, ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মামুনুন রশিদ পাঠান, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ শাহ আলম, আওয়ামী লীগ নেতা আমির আজম রেজা, দাতুশ্রী সিআইপি আঃ কাদির জেমস।
আরো বক্তব্য রাখেন ৭৫ বছর পূর্তি ও মিলনমেলা উদ্যাপন পরিষদের সদস্য সচিব মুন্সী মোঃ সালাউদ্দিন আইউবী, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শরীফ হোসাইন, প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্যে সৈয়দ আহমেদ পাটওয়ারী, আবু বকর সিদ্দিক, ইন্দ্রজিৎ বর্ধন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ উদ্দিন আহমেদ, ডাঃ সাইফুল ইসলাম সোহেল, আলাউদ্দিন বকাউল, ডাঃ হারুনর রশিদ প্রমুখ।
প্রথম পর্বের আলোচনা শেষে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও এলাকার কৃতী সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। বিকেলে স্মৃতিচারণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

 

সর্বাধিক পঠিত