• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১
  • ||
  • আর্কাইভ

চাঁদপুর জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা

বর্তমান সরকারের আমলেই এ ধরনের উন্নয়ন সম্ভব : শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশ:  ২০ নভেম্বর ২০২৩, ১০:২২
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি বলেছেন, চাঁদপুরসহ সারাদেশে উন্নয়ন চলছে উন্নয়ন চলবে। বাংলাদেশ তার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাবে। গতকাল ১৯ নভেম্বর রোববার সকালে চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত নভেম্বর মাসের জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপ্রধানে ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বশির আহমেদের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায় (সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার), সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ সাহাদাৎ হোসেন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মনোয়ার হোসেন, ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারী, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান, হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ নূর হোসেন পাটোয়ারীসহ বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাগণ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী উপস্থিত সরকারি সকল বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে দোয়া চেয়ে চাঁদপুরের উন্নয়ন কাজগুলো দ্রুত সম্পন্ন করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, চাঁদপুরে পর্যটনের যে পরিকল্পনা ও সম্ভাবনা রয়েছে, তার একটি বড় অংশ হচ্ছে আধুনিক নৌবন্দর। সকালে এসে রাতে ফিরে যেতে পারবে এমন জায়গা খুবই কম আছে। সবখানে যেতে হলে সময় নিয়ে যেতে হয়। চাঁদপুরে দিনে ঢাকা থেকে সরাসরি এসে ভ্রমণ শেষে রাতে ফিরে যাওয়া যায়। এছাড়া নদীপথের যাত্রা অনেক নিরাপদ ও আরামদায়ক। এজন্যে এই চাঁদপুরকে আমরা যতো ভালো করতে পারি, সে উদ্যোগ রয়েছে।
তিনি বলেন, চাঁদপুর শহরের সড়কগুলো প্রশস্তকরণের জন্যে ইতোমধ্যেই কাজ শুরু হয়েছে। যদিও আমাদের ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় পুরাতন সড়ক খুবই সরু। বর্তমানে সাধারণ মানুষের সক্ষমতা বেড়েছে। সড়কগুলোতে গাড়ি বেশি চলে। যে কারণে সড়ক প্রশস্তকরণে সকলের সহযোগিতা লাগবে। দীপু মনি বলেন, বাংলাদেশে শতভাগ বিদ্যুৎ, অনেকেই তা বিশ্বাস করতে পারেনি। বর্তমান সরকারের আমলেই এ ধরনের উন্নয়ন সম্ভব। উন্নয়ন চলছে উন্নয়ন হবে এবং উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে। এছাড়াও তিনি জেলার উন্নয়ন কার্যক্রমের বিষয়ে বিভিন্ন দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন।
এনএসআই ডিডি শাহ আরমান আহমেদসহ জেলার বিভিন্ন দপ্তর প্রধান/প্রতিনিধি, সকল উপজেলা নির্বাহী অফিসার, বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিবর্গ এবং অন্যরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।
সভাপ্রধানের বক্তব্যে জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বিভিন্ন দপ্তরের অবকাঠামোসহ চলমান উন্নয়ন কাজগুলো যথাসময়ে শেষ করা এবং দ্রুত সম্ভব চেষ্টা করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত হয়েছে। এতে নির্বাচনী পরিবেশ তৈরি হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রস্তুতি কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
তিনি বলেন, গত শুক্রবার ঘূর্ণিঝড় মিধুলির প্রভাব চাঁদপুরেও পড়েছে। এখানে বিগত পাঁচ বছরের মধ্যে রেকর্ড পরিমাণ ২১৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়। দিনভর মুষলধারে বৃষ্টির কারণে চাঁদপুরের সবগুলো উপজেলায় কম-বেশি ক্ষতি হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত  হয়েছে শাহরাস্তি উপজেলায়। বহু গাছপালা ভেঙ্গে পড়ে। বাড়িঘর, জমির পাকা ধান, শীতকালীন শাক সবজি ও সরিষা ক্ষেত নষ্ট হয়। আমরা চেষ্টা করছি কৃষির এ ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠার জন্য একটি রিপোর্ট তৈরি করে দ্রুত প্রেরণ করা। জেলা পুলিশের পক্ষে সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, চাঁদপুর) সুদীপ্ত রায়  তাঁর বক্তব্যে বলেন, সামনে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট রয়েছে জাতীয় নির্বাচন। একটি গোষ্ঠী চেষ্টা করছে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করার। চাঁদপুর জেলা পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কাজে সদা তৎপর রয়েছে যাতে আমরা সুস্থ সুন্দরভাবে নির্বাচনটা সম্পন্ন করতে পারি।
সভায় উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ একেএম মাহাবুবুর রহমান, প্রেসক্লাব সভাপতি এএইচএম আহসান উল্লাহ, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শওকত আহমেদ মজুমদার, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আহসান কবির, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ জহুরুল ইসলাম, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মনজুরুল আলম শরীফ, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মেহেদী হাসান ভূঁইয়া, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু মুসা মোহাম্মদ ফয়সাল, পল্লী বিদ্যুৎ কর্মকর্তা আতিকুুজ্জামান চৌধুরী, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আব্বাস উদ্দিন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মোঃ রুহুল আমিন, জেলা পরিসংখ্যান উপ-পরিচালক মোঃ রুহুল আমিন প্রমুখ।
সভায় জেলায় চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম সুচারুভাবে সম্পন্ন করতে সকল দপ্তরের আন্তঃসমন্বয় নির্ধারণে নানাবিধ আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সর্বাধিক পঠিত