• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
  • ||
  • আর্কাইভ

চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

দোয়াত-কলমের সমর্থনে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের মিলনমেলা

প্রকাশ:  ০৯ মে ২০২৪, ১৩:১৩
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

২১ মে চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নব্বইর দশক থেকে সাবেক ছাত্রলীগ নেতারা এক টেবিলে বসেছেন। শতাধিক সাবেক ছাত্রলীগ নেতা একত্রিত হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে চেয়ারম্যান প্রার্থী আইয়ুব আলী বেপারীর পক্ষে দোয়াত কলম মার্কার সমর্থনে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের এমন মিলনমেলায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ও চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মোঃ জিল্লুর রহমান বলেছেন, নানাভাবে আমরা চেয়ারম্যান প্রার্থী আইয়ুব আলীর পক্ষে আছি। তিনি ছাত্রলীগের একজন কর্মী ও নেতা ছিলেন। এছাড়াও আমিসহ এখানে যারা আছেন তাদের সাথে তার প্রায় ৩৫ বছরের বন্ধুত্ব। বন্ধুত্ব ব্যক্তিগত এবং রাজনীতি দুটোই। যে কারণে বন্ধুর জন্য আমরা কাজ করবোই।
৭ মে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চাঁদপুর শহরের হাজী মহসীন রোডস্থ রসূই ঘর পার্টি সেন্টারে সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দোয়াত কলম প্রতীকে চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. আইয়ুব আলী বেপারীর সমর্থনে ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের অংশগ্রহণে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সামনে পৌরসভা নির্বাচন। যে কারণে আমার চিন্তা ছিল কারো পক্ষে না যাওয়া। এটা দোষের কিছু না। সবাইতো দলের। তাদের পিছনে যারা কাজ করছেন তারাও আমাদের লোক। কিন্তু আমরা একটি ভয়াবহ চিত্র দেখলাম। বিষয়টি এত সহজ না। আমরা যদি মনে করি এটি শুধু দলের প্রার্থীর মধ্যে লড়াই, তাহলে এটি ভুল হবে। এটি এত সহজ সরল অংক নয়। এটার পেছনে অনেক রহস্য আছে।
মেয়র বলেন, এখানে যারা নির্বাচন করছেন, তাদের প্রত্যেকের একটি রাজনৈতিক বেকগ্রাউন্ড আছে। তবে বয়সে যিনি বড় তার বেশি, যিনি বয়সে ছোট তার কম। প্রার্থী নিয়ে কোনো বক্তব্য দেবো না। কিন্তু প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার বিভিন্ন উদ্দেশ্য থাকে। যেমন আদর্শ ও সম্পর্ক। এর বাহিরেও কিছু ফোরাম আছে। সেই ফোরামের উদ্দেশ্য ভাল নয়। তারা বলার চেষ্টা করছে, এই নির্বাচন হচ্ছে কোয়ার্টার ফাইনাল, পৌরসভার নির্বাচন হচ্ছে সেমি-ফাইনাল এবং ফাইনাল হচ্ছে এমপি নির্বাচন। আমরা দেখছি এভাবে তারা বণ্টন করেছেন। এভাবে বণ্টন করে তারা লোকজন জড়ো করছে।
তিনি বলেন, নির্বাচনে অনেক কৌশল ব্যবহার হয়। আমাদের কৌশল একটাই, আমরা ভোটের অর্থাৎ ব্যালটের মাধ্যমে সকল ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের জবাব দেবো। আমাদের কৌশল হবে কারো সাথে সংঘাত নয়। যার প্রার্থী তার সাথে তারা কাজ করবে। আমরা যারা আইয়ুব আলীর পক্ষে আছি, তারা যার যার ভোট কেন্দ্রে ভোটটাকে নিশ্চিত করবো।
মেয়র বলেন, আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি মাঠে আইয়ুব আলীর অবস্থা অসম্ভব ভালো। ভোটের জায়গায় আমরা শক্ত জায়গায় আছি। মানুষ আমাদের প্রার্থীকে এক বাক্যে ভাল বলেন। অধিকাংশ লোক উনাকে চেনেন, আবার কেউ কেউ চেনেন না। এটি তিনি ভাল মানুষ হওয়ার কারণেও হতে পারে। কারণ অনেক মানুষ খারাপ হলেও তার পরিচিতি থাকে। যখন দেখবেন চেনেন না, তখব বুঝবেন তিনি ভালও করেননি, খারাপও করেননি। তাই ধরে নিলাম আমাদের প্রার্থী ভালো। আমরা প্রমাণ করে দেবো ভালো মানুষের পেছনে অনেক লোক আছে।
তিনি সাবেক নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, দীর্ঘ ১৫ বছরের অধিক সময় দল ক্ষমতায়। তারপরেও আমাদের কেনো এতো আশংকার মধ্যে থাকতে হয়। আমাদের মধ্যে সরকারি সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেন তাদের সংখ্যা কম। যারা সরকারি সুযোগ-সুবিধা চায় না, তারা সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে আচরণগত মূল্যায়ন চায়। এটি আমরা অনেক ক্ষেত্রে করতে পারি না। আমার নিজেরও এমনটি হয়। আমি সকলের কাছ থেকে ক্ষমা চাচ্ছি এ বিষয়ে।
চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক অর্থ বিষয়ক সম্পাদক এবং নব্বইর গণঅভ্যুত্থানের রাজপথের অন্যতম নেতা মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বাদশার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দোয়াত কমল প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ আইয়ুব আলী বেপারী।
তিনি বলেন, আমি এই সভায় অনেকের বক্তব্য শুনেছি। যারা আমাকে সমর্থন দিয়েছেন, তাদের সকলকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আমরা যারা বড়দের অনুসরণ করে ছাত্রলীগ করেছি, আবার আমাদের দেখে ছোট ভাইরা করছে। তাদের সাথেও আমরা ছিলাম। আমি শুধুমাত্র একটি কথাই বলবোÑআগামী ২১ মে মঙ্গলবার নির্বাচন। সেই নির্বাচনে আমার সকল সাবেক ছাত্রলীগ নেতা যদি দোয়াত কলম মার্কার সমর্থনে কাজ করেন, তাহলে আমি নির্বাচিত হলে আমি আপনাদের সাথে নিয়ে কাজ করবো এবং আপনাদের পাশে থাকব। আমার চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই। আপনাদের পাশে থেকে রাজনীতি এবং উপজেলার লোকদের সেবা করতে চাই।
চাঁদপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর ইকবাল হোসেন বাবু পাটওয়ারীর সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ঝন্টু দাস, হাসান ইমাম বাদশা, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য জাফর ইকবাল মুন্না, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক সাইফুদ্দিন বাবু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আক্তার হোসেন পাটওয়ারী, কাউন্সিলর অ্যাডঃ হেলাল হোসাইন, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস মোরশেদ জুয়েল, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জিয়াউল আমিন দিপু, চাঁসক ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বেপারী, জেলা ছাত্রলীগ নেতা রাজীব রায় চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগ নেতা রিপন ভদ্র, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক আবুল বারাকাত লিজন পাটওয়ারী, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু বকর ছিদ্দিক, পুরাণ বাজার ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ মাহবুবুর রহমান বেপারী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বাহার, রনি, অপু পাটওয়ারী, ওমর ফারুক প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, যারা এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করেছেন তাদের আহ্বানে আমরা এখানে উপস্থিত হয়েছি। সে কারণে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তবে এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেসব লেখালেখি হচ্ছে তা মোটেই কাম্য নয়। অনেকেই আমাদেরকে ফোন কল পেয়ে না আসার অনুরোধ জানিয়েছেন। কিন্তু আমরা সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের আহ্বানে সাড়া না দিয়ে পারলাম না। আমরা চাঁদপুর-৩ আসনের উন্নয়নের রূপকার ডাঃ দীপু মনি এমপির উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে চাই। চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের দায়িত্ব ভোটের মাধ্যমে একজন যোগ্য ও নিরাপদ ব্যক্তির হাতে তুলে দিতে চাই। সেই ব্যাক্তিটি হলো আমাদের সকলের প্রিয়, সৎ ও যোগ্য ব্যক্তি আইয়ুব আলী বেপারী। আমরা সকলে নির্বাচনের দিন দোয়াত কলম মার্কায় নিজে ভোট দিব, অন্যদেরকে ভোট দিতে কেন্দ্রে নিয়ে আসব এবং বিজয় নিয়ে বাড়ি ফিরবো।