• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮
  • ||
  • আর্কাইভ

চাঁদপুরে করোনার ভ্যাকসিনে নারী-পুরুষের আগ্রহ বাড়ছে

প্রকাশ:  ১৮ এপ্রিল ২০২১, ১৩:৫৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

চাঁদপুরে করোনার ভ্যাকসিন নিতে নারী-পুরুষের আগ্রহ দিন দিন বাড়ছে। প্রতিদিনই সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে এসে ভ্যাকসিন তথা টিকা নিচ্ছে। সরজমিনে গতকাল শনিবার চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের করোনা টিকা কেন্দ্র এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, সকাল থেকে নারী-পুরুষ দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে রয়েছেন টিকা নিতে। তবে এর মধ্যে দেখা গেছে দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিতেই আসছে বেশিরভাগ নারী-পুরুষ।
চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ ঈসা রুহুল্লাহর কাছে গতকাল বিকেলে এ প্রতিবেদক জেলা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, চাঁদপুর জেলায় আজ করোনার টিকা নিয়েছেন ২৪৪৮ জন। এর মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৭৩ জন। যার মধ্যে পুরুষ ৪৫ ও মহিল ২৮ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ২৩৭৫ জন। যার মধ্যে পুরুষ ১৪৮৮ এবং মহিলা ৮৮৭ জন। পুরো ৮ উপজেলার মধ্যে চাঁদপুর সদরেই টিকা নেয়া হয়েছে বেশী।  গতকাল প্রথম ডোজ নেয়া উপজেলাগুলোর মধ্যে পুরুষের সংখ্যা সদর উপজেলায় ১৪, হাইমচর ৫, ফরিদগঞ্জ ২, হাজীগঞ্জ ২, শাহরাস্তি ৮, কচুয়া ৪, মতলব দক্ষিণ ৮ ও মতলব উত্তর ২জন। আর মহিলাদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১১, হাইমচর ২, ফরিদগঞ্জে ২, হাজীগঞ্জ ১, শাহারস্তি ৩, কচুয়া ৩, মতলব দক্ষিণ ৫ ও মতলব উত্তর ১ জন। দ্বিতীয় ডোজ নেয়া উপজেলাগুলোর মধ্যে পুরুষ চাঁদপুর সদর উপজেলায় ৭৪৪, হাইমচর ৩৮, ফরিদগঞ্জে ৮৬, হাজীগঞ্জে ২৫৩, শাহারাস্তিতে ১৪৮, কচুয়া ৫৮, মতলব দক্ষিণে ১২৫ ও মতলব উত্তরে ৩৬। মহিলাদের মধ্যে চাঁদপুর সদরে ৪২০, হাইমচর ৩৫, ফরিদগঞ্জে ৫০, হাজীগঞ্জে ১৪৪, শাহরাস্তিতে ৭১, কচুয়ায় ৪৪, মতলব দক্ষিণে ১০২ ও মতলব উত্তরে ২১ জন।
চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিসের করোনার টিকার সাথে জড়িত সবুজের সাথে গতকাল বিকেল সাড়ে ৪টায়  মুঠোফোনে শনিবারে করোনার টিকা দিতে আসা চাঁদপুর আড়াইশ’ শয্যা হাসপাতালে রোগীদের সর্ম্পকে তথ্য জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, এদিন করোনার টিকা নিয়েছে ১১৮৯ জন। এর মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ২৫ জন। যার মধ্যে পুরুষ ১৪ জন এবং মহিলা ১১ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১১৬৪ জন। যার মধ্যে পুরুষ ৭৪৪ জন এবং মহিলা ৪২০ জন।
চাঁদপুর জেলায় প্রথম ধাপে গত ৩১ জানুয়ারি ৭২ হাজার টিকা এসে পৌঁছে। ওইদিন সন্ধ্যায় জেলার সিভিল সার্জনসহ করোনার টিকার সাথে জড়িতরা এসব টিকা গ্রহণ করেন। এরপর গত ৯ এপ্রিল বিকেলে ৩৯ হাজার ডোজ (২য় ডোজ) চাঁদপুর এসে পৌঁছেছে। এর মধ্যে এখন অনেকেই প্রথম ডোজের টিকা নিচ্ছেন। হাসপাতালের সামনে দাঁড়িয়ে দেখা গেছে, এখনও যারা টিকা নেয়নি তাদের মধ্যে অনেকেই সিভিল সার্জন অফিস, চাঁদপুর সরকারি হাসাপাতালের সাথে জড়িত ডাক্তার এমনকি করোনার টিকা নিতে আসা রোগীদের সহযোগিতাকারী রেডক্রিসেন্টের সদস্যদের কাছ থেকে জেনে নিচ্ছে কীভাবে প্রথম ডোজের টিকা নিবে। আবার এর মধ্যে যারা প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন তারা সপরিবারে এসেছেন দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিতে।
শনিবার টিকা নিতে আসা চাঁদপুর সরকারি কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন বাহার ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবুকে লাইনে দাঁড়ানো অবস্থায় টিকার ব্যাপারে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমরা প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছি এবং আমরা সুস্থই ছিলাম। আজ এসেছি দ্বিতীয়  ডোজের টিকা নিতে।  তবে যারা এখনও টিকা নেয়নি তারা যেনো টিকা নিয়ে নেয়।
শনিবার বিকেলে এ রিপোর্ট লেখা পযন্ত জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত ৩৭৫১ এবং মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৩৭৭০। এর মধ্যে সুস্থ ৩০৫৫ এবং মৃত্যু ১০৩ জন। আর আইসলোশনে রয়েছেন ২৭ জন।