• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭
  • ||
  • আর্কাইভ

ব্রেকিং নিউজ

হাজীগঞ্জে কাদামাটিতে রসুন চাষ শুরু

প্রকাশ:  ০৮ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:৫০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

হাজীগঞ্জে কাদামাটিতে রসুনের চাষ শুরু করেছেন কৃষকরা। যেখানে কাদামাটিতে রসুন পচে যাওয়ার কথা সেখানে কাদামাটিতে রসুনের বীজ বপন করে তা থেকে ভালো ও লাভজনক ফলন আসছে। কৃষকেরা নিজস্ব ভাবনা থেকে রসুনের চাষ শুরু করেছেন। এর আগে একই পদ্ধতি অবলম্বন করে ভালো ফলন পাওয়ায় এবারও রসুনের চাষ শুরু করেছে উপজেলার কিছু কৃষক। তবে এ বিষয়টি নিয়ে কৃষি অফিস থেকে কোনো নির্দেশনা কেউ দেয়নি বলে জানান চাষীরা।


জানা যায়, এ বছর উপজেলার অধিকাংশ কৃষি জমি থেকে বর্ষা মৌসুমের পানি এখনো নামেনি। ফলে বহু কৃষক আলু, টমেটো, সরিষা, রসুন, পেঁয়াজ চাষ শুরু করতে পারেনি। দেরিতে পানি নামার কারণে বীজতলা তৈরির কাজ মাত্র শুরু করেছেস কৃষকরা। তবে স্থানীয়ভাবে কিছু কৃষক নিজস্ব ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে স্যাঁতস্যাঁতে জমিতে রসুনের চাষ শুরু করেছেন। এই জমিতে বীজ রোপনের আগে জমি তৈরি কিংবা নিড়ানি দিতে হয় না। বিষয়টি অন্য ৮/১০ কৃষকের কাছে অসম্ভব বা ধোঁয়াশার মতো মনে হলেই এটার বাস্তবতা মিলতে শুরু করেছে হাজীগঞ্জে।


আরো জানা যায়, সাধারণ রসুন কিংবা পেঁয়াজ চাষ করতে হলে মাটিকে একেবারে গুড়া করে জমি তৈরি করতে হয়। এর মধ্যে বীজ রসুনের কোয়া হিসেবে সারিবদ্ধভাবে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে রসুনের বীজ রোপন করতে হয়। কিন্তু কাদামাটিতে রসুন রোপনের পন্থাটি একেবারে উল্টো।

উপজেলার বাকিলা ইউনিয়নের সন্না পশ্চিম মাঠের কাদামাটিতে রসুন চাষকারী কৃষক আমির হোসেন জানান, জমিতে স্যাঁতস্যাঁতে কাদার মধ্যেই রসুনের বীজ নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে বীজের এক তৃতীয়াংশ চেপে বসিয়ে দিতে হবে। এর কয়েকদিন মধ্যেই জমির পানি শুকিয়ে স্যাঁতস্যাঁতে ভাবটা চলে যায়, পাশাপাশি রসুন বীজ থেকে পাতা গজিয়ে উঠতে শুরু করে। ইতিমধ্যে জমির মাটি শুকিয়ে গেলে রসুনের লাগানো বীজের লাইন ঠিক রেখে মাটিকে ছোট কোদালের মাধ্যমে টেনে নিয়ে সারি বা কেল তৈরি করে দিতে হবে। এই কেল করতে গিয়ে রসুনের বীজ পুরোপুরি মাটিতে ঢেকে যাবে। এরপরেই স্বাভাবিক পরিচর্যা করলে রসুন আস্তে আস্তে বৃদ্ধি পাবে। এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রসুন চাষ করলে প্রথমে জমি তৈরির কোনো খরচ লাগাবে না পাশাপাশি ফলনটা বেশ ভালো ও পুষ্ট হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মাজেদুর রহমান জানান, কৃষি জমি থেকে দেরিতে পানি নামলে নির্দিষ্ট সময় কৃষক এভাবেই মসলা চাষ করলে ভালো ফলন পাবে। তবে আগ্রহী কৃষকরা আমাদের সাথে যোগাযোগ করলে আমরা তাদেরকে এ বিষয়ে পরামর্শ দেবো।