• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ৯ বৈশাখ ১৪২৮
  • ||
  • আর্কাইভ

প্রাথমিকের সব শিক্ষককে দ্রুত টিকার নিবন্ধনের নির্দেশ

প্রকাশ:  ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৯:২৮
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

দেশের সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষককে করোনাভাইরাসের টিকা নিতে নিবন্ধন করার নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর থেকে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে।
নির্দেশনায় বলা হয়েছে, অগ্রাধিকারভিত্তিতে দেশের সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষককে কোভিড-১৯ টিকার আওতায় আনার নির্দেশনার প্রেক্ষিতে ইতোমধ্যে অনেক শিক্ষকই টিকা গ্রহণের জন্য নিবন্ধন করেছেন। অনেকেই টিকা নিয়েছেন। কিন্তু এখনও বিভিন্ন কারণে অনেক শিক্ষক নিবন্ধন করতে পারেননি বলে জানা গেছে। যারা এখনও নিবন্ধনের আওতায় আসেননি, তারা দ্রুত নিবন্ধন সম্পন্ন ও টিকা গ্রহণ নিশ্চিত করার জন্য অনুরোধ করা হলো।
আদেশে বাস্তবায়নে সব আঞ্চলিক উপ-পরিচালক, জেলা শিক্ষা অফিসার ও উপজেলা-থানা শিক্ষা অফিসারকে পাঠানো হয়েছে। ওই আদেশে বলা হয়েছে, সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষককে কোভিড-১৯ টিকার আওতায় আনার জন্য সরকার আন্তরিক।
গত ৯ ফেব্রুয়ারি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই) থেকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সব শিক্ষককে করোনাভাইরাসের টিকা নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়। এতে বলা হয়, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে এলে সব বিদ্যালয় খুলে দেয়া হবে। বর্তমানে ভাইরাস থেকে মুক্ত থাকতে সব প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষকদের টিকা নিতে হবে।
নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ইতোমধ্যে শিক্ষকদের টিকা দেয়ার নামের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহ পর টিকা দেয়ার কার্যক্রম শুরু করা হবে। সব শিক্ষক-কর্মকর্তা নির্ধারিত টিকাদান কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে টিকা নেবেন।
কারা টিকা নিচ্ছে, কারা নিচ্ছে না, টিকা নেয়ার পর শিক্ষকদের কী অবস্থা এসব বিষয় জানতে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের ডিপিই থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
এদিকে আগামী সপ্তাহ থেকে প্রাথমিক শিক্ষকদের করোনার টিকা দেয়া করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন। গত ৯ ফেব্রুয়ারি সচিবালয় ক্লিনিকে টিকা নেয়ার পর এ কথা বলেন তিনি।
এদিকে মন্ত্রণালয় ও তার অধীনস্থ বিভিন্ন দফতরে কর্মরত ১ হাজার ৮৮৬ জনকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনার টিকা দেয়ার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে চিঠি দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সূত্র : জাগো নিউজ।