• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭
  • ||
  • আর্কাইভ

ব্রেকিং নিউজ

চাঁদপুরে জমইয়াতে হিযবুল্লাহর কমিটি গঠন

সভাপতি সাইফুদ্দিন খন্দকার, সম্পাদক মমিন খান

প্রকাশ:  ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৮:০৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

বাংলাদেশ জমইয়াতে হিযবুল্লাহর আমীর ও ছারছীনা শরীফের পীর ছাহেব আলহাজ্ব হযরত মাওলানা শাহ্ মোহাম্মদ মোহেব্বুল্লাহ (মাঃজিঃআঃ) এর স্বাক্ষরিত চাঁদপুরের কমিটির ঘোষণা করা হয়েছে। ২০ ফেব্রুয়ারি শনিবার বিকেলে চাঁদপুর শহরের খানকায়ে ছালেহিয়া মোহেব্বীয়া কমপ্লেক্সে সংগঠনের জেলা সাধারণ পরিষদের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। ওই অধিবেশনে প্রধান অতিথি সংগঠনের কেন্দ্রীয় গবেষণা ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং ছারছীনা হযরত পীর ছাহেবের মেজ জামাতা ড. হাফেজ মাওলানা মোঃ রুহুল আমিন চাঁদপুরের জেলা কমিটি ঘোষণা করেন। কমিটিতে তাঁরা হলেন জেলা সভাপতি মাওলানা মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন খন্দকার, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মোঃ মমিনুল ইসলাম খান, তালীম তরিকত সম্পাদক মাওলানা মোঃ আব্দুল মালেক এসলাহী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আ হ ম সাইফুল্লাহ। কমিটি ঘোষণা হলে উপস্থিত সাধারণ সদস্যরা মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় করেন (আলহামদুলিল্লাহ) এবং আমিরে হিযবুল্লাহকে মোবারক বাদ জানান। প্রধান অতিথি ড. হাফেজ মাওলানা মোঃ রুহুল আমিন তাঁর বক্তব্যে বলেন, ছারছীনা শরীফ আমলের দরবার। এ দরবার হুব্বে রাসুলের অনুসরণ করতে শেখায়। আমল- আখলাক, তালীম-তরিকত সুমন্নত রাখতে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে সংগঠন। এখন দেশের বৃহত অরাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ জমইয়াতে হিযবুল্লাহ। তিনি আরো বলেন, এ সংগঠনের কর্মীরা আমিরে হিযবুল্লাহর নির্দেশে দেশের দিগ-দিগন্তে দাওয়াতী কাজ করছেন। আমরা গদি চাইনা। দলীয় রাজনীতির উর্ধ্বে থেকে রাসূলে আরাবির আদশ্য বাস্তবায়নে ছারছীনা দরবার কাজ করছে। সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরো বলেন, আল্লামা শাহ সুফি নেছারুদ্দীন আহমদ (রহঃ) এর গড়া জমইয়াতে হিযবুল্লাহ। সেই সংগঠনের নেতৃত্ব দিয়ে ছিলেন মুজাদ্দেদে জামান হযরত মাওলানা শাহ্ সূফী আবু জাফর মুহাম্মদ ছালেহ (রহঃ)। তাঁর উত্তরসূরী ছারছীনা হযরত পীর ছাহেব মাওলানা শাহ্ মোহাম্মদ মোহেব্বুল্লাহ (মাঃজিঃআঃ) সংগঠনের আমিরের দায়িত্ব নিয়ে সারাদেশে বিস্তার করেছেন বাংলাদেশ জমইয়াতে হিযবুল্লাহ। এ সংগঠনের সহযোগী সংগঠন হিসেবে কাজ করছে বাংলাদেশ যুব ও ছাত্র হিযবুল্লাহ এবং বাংলাদেশ আইয়াম্মায়ে হিযবুল্লাহ। এ সংগঠনের কর্মীদের নিয়ে শাহ্ নেছার ও শাহ্ ছালেহ নামে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে সাড়ে ১০ হাজার আলিয়া মাদ্রাসা। বর্তমান পীর ছাহেবের নেতৃত্বে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে প্রায় ৩ হাজার দীনিয়া মাদ্রাসা ও খানকা। যেখানে মানুষকে আল্লাহ ওয়ালা হতে তালীম প্রধান করা হয়। আর ছাত্রদের দেয়া হয় নায়েবে নবীর শিক্ষা। তিনি এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে সবাইকে আহ্বান জানান।