• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮
  • ||
  • আর্কাইভ

করোনামুক্তিতে মসজিদে মসজিদে বিশেষ মোনাজাত

প্রকাশ:  ০৮ মে ২০২১, ১৬:৫২
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

শুক্রবার পবিত্র মাহে রমজানের শেষ জুমায় চাঁদপুরের মসজিদে মসজিদে আল্লাহর রহমত কামনা করে করোনাভাইরাসের মুক্তির জন্যে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। পবিত্র জুমাতুল বিদা উপলক্ষে এদিন সকল মসজিদে মুসলি্লর ঢল নামে। নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাতে করোনা মহামারি থেকে মুক্তি পেতে মহান আল্লাহর দরবারে করুণ আকুতি জানান ধর্মপ্রাণ মানুষ। এ সময় তারা মহান আল্লাহতালার কাছে গুনাহ মাফ এবং পবিত্র রমজানে ইবাদত বন্দেগি কবুলের আবেদন জানান। চোখের পানিতে মুসলিম উম্মার সুরক্ষা, অসুস্থদের দ্রুত আরোগ্য লাভ, মহামারি পরিস্থিতির উন্নতি এবং দেশের কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।


চাঁদপুর জেলায় জুমাতুল বিদার নামাজের সবচেয়ে বড় জামাত অনুষ্ঠিত হয় ঐতিহাসিক হাজীগঞ্জ বড় মসজিদ, পুরাণবাজার বড় মসজিদ, কোর্ট স্টেশনস্থ বায়তুল আমিন রেলওয়ে জামে মসজিদ, চাঁদপুর বাসস্ট্যান্ড জামে মসজিদ, ঐতিহাসিক বেগম জামে মসজিদ, রেলওয়ে বড়স্টেশন জামে মসজিদসহ উপজেলা সদরস্থ মসজিদগুলোতে। সকল মসজিদে মাহে রমজানের শেষ জুমাকে ঘিরে অন্যরকম এক ভাবগম্ভীর পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

 


বেলা ১২টার পূর্ব থেকেই শুরু হয় ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জুমার নামাজের প্রস্তুতি। মাসজুড়ে রোজা আর ইবাদত বন্দেগির মধ্যে পবিত্র এই মাসকে বিদায় জানাতে মুসলি্লরা হাজির হন মসজিদে। আজানের পরপরই প্রতিটি মসজিদ কানায় কানায় ভরে যায়।

 


প্রতিটি মসজিদে খুতবায় উচ্চারিত হয় 'আল বিদা, আল বিদা, ইয়া শাহরু রামাদ্বান।' বিদায় রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের মাস মাহে রমজান। জুমাতুল বিদা উপলক্ষে বিশেষ খুতবা প্রদান করেন ইমাম ও খতিবগণ। তাঁরা মর্যাদাপূর্ণ এ দিনটির ফজিলত বর্ণনা করেন। খতিবগণ মাহে রমজানের শেষ দিনগুলোতে বেশি বেশি ইবাদত বন্দেগি করার আহ্বান জানান। সেই সাথে জাকাত, ফিতরা বিতরণের বিভিন্ন মাসলা মাসায়েলও তুলে ধরেন।

 


স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পবিত্র জুমার নামাজ আদায় করেন মুসলি্লরা। উপচে পড়া মুসলি্লর ভিড়ে জুমার জামাত অনেক মসজিদ ছাড়িয়ে আশপাশের সড়ক ও খোলা মাঠ পর্যন্ত বিস্তৃত হয়।

 


পুরাণবাজার ঐতিহাসিক জামে মসজিদে আল্লাহর শেফা কামনা করে দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন পেশ ইমাম মুফতি ইব্রাহিম খলিল।