• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ৯ বৈশাখ ১৪২৮
  • ||
  • আর্কাইভ

লকডাউন : বাজারে দেখা গেলো অদ্ভূত দৃশ্য!

প্রকাশ:  ০৫ এপ্রিল ২০২১, ১৪:১৩
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

গতকাল রোববার বাজার, মার্কেট এবং রাস্তায় যে দৃশ্য দেখা গেলো, তা কোনো ঈদ পূর্ববর্তী মার্কেটের সাথে তুলনা করা যাবে না। স্মরণাতীতকালের কোনো ঈদ পূর্ববর্তী মার্কেটে এতো মানুষের সমাগম হয় নি। কোত্থেকে এতো মানুষ আর এতো যানবাহন আসলো তা ভেবে চোখ কপালে উঠে যাওয়ার মতো অবস্থা। সোমবার থেকে এক সপ্তাহের লকডাউন। এই লকডাউনের সময় আবার বাড়তেও পারে। তাই একবারে সব কিনে বাসা-বাড়িতে গুদামজাত করে ফেলতে হবে। কারণ, লকডাউন শেষ হলে বাঁচার তো কোনো নিশ্চয়তা নেই!? লকডাউনের পর এই অসহিষ্ণু এবং অধৈর্য মানুষগুলো সব এক সাথে মরেও তো যেতে পারে। তাই মরার আগে সব এক সাথে খেয়ে মরতে পারলেও তো শান্তি!! আবার লকডাউনের সময় যদি কোনো কিছু কিনতে না পারে ! তখন তো না খেয়ে মরতে হবে। আয় হায়! এমন মৃত্যু হলে তো জাত যাবে ! অথচ সরকার থেকে বলা হয়েছে লকডাউনের সময় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য তথা খাদ্য সামগ্রী, ঔষধের দোকান সীমিত আকারে খোলা থাকবে। তারপরও ক্ষুধার্ত খাম খাম মন তো মানে না। হোক করোনা! তাতে কী! সে জন্য কী না খেয়ে মরবে?
এমন অদ্ভুত দৃশ্যই দেখা গেলো গতকাল দিনভর চাঁদপুর শহরের সর্বত্র। শুধু চাঁদপুর শহর নয়, এই জেলার প্রতিটি উপজেলা শহরের বাজারগুলোতে দেখা গেলো অদ্ভুত কা-। শুধু মানুষ আর মানুষ। পঙ্গপালের ন্যায় ছুটছে মানুষ শহরের দিকে। সকাল থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত শুধু কেনাকাটার প্রতিযোগিতা। আর এই মানুষগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য অংশ ছিলো নারী। কার আগে কে কিনবে শুধু এই প্রতিযোগিতা দেখা গেলো। পদচারী মানুষ এবং যানবাহন। এই দুইয়ের অকল্পনীয় ভিড়ে রাস্তার পাশ দিয়ে পায়ে হেঁটে চলাও ছিলো কষ্টের। তারপরও কোনো যানবাহনের চেয়ে পায়ে হেঁটে চলাই ছিলো গতকালকের জন্য উপযোগী এবং বুদ্ধিমানের কাজ। সেই পথচলা কয়েক কিলোমিটার হলেও যেনো কোনো কষ্টের ছিলো না। বাজারের এই অদ্ভুত দৃশ্য দেখে কিছু মানুষ চেয়ে চেয়ে দেখে শুধু দীর্ঘশ^াস ফেলেছে।