• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
  • ||
  • আর্কাইভ

ব্রেকিং নিউজ

কাতারে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছে দূতাবাস

প্রকাশ:  ১৭ এপ্রিল ২০২০, ১৩:২৮ | আপডেট : ১৭ এপ্রিল ২০২০, ২২:৪০
ইউসুফ পাটোয়ারী লিংকন
প্রিন্ট

বাংলাদেশ দূতাবাস কাতার চালু করেছেন করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে কর্মহীন হয়ে পড়া অসহায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য পাঠানো ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছে কাতারস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। সরকারের পক্ষ থেকে কাতারস্থ দূতাবাসকে ত্রাণ বিতরণের জন্য ৫ লাখ টাকা দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে কাতারে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক বাংলাদেশি কর্মীর আয়-রোজগার বন্ধ হয়েছে। এর অন্যতম কারণ অবৈধ ফ্রি-ভিসা। ইতোমধ্যে, কাতার রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি কর্তৃক প্রদত্ত ৬০০ খাবার প্যাকেট বাংলাদেশ কমিউনিটির সহায়তায় অসহায় কর্মীদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

কাতার চ্যারিটি হতে প্রাপ্ত ৫০০ খাবার প্যাকেট দূতাবাস এবং কমিউনিটির নেতৃবৃন্দের মাধ্যমে অসহায় কর্মী ও পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

দূতাবাসের শ্রম কাউন্সেলর ড. মো. মুস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, ‘কাতারের বিভিন্ন জায়গা থেকে যেসব বাংলাদেশি কর্মী আমাদের কাছে সাহায্য চেয়েছেন, আমরা তাদের নাম ও ঠিকানা সংগ্রহ করে একটি তালিকা করেছিলাম। এখন তাদেরকে ফোন করে নির্ধারিত সময়ে এসে সাহায্য নিয়ে যাওয়ার জন্য বলেছি। যারা আসতে অপারগ, আমরা তাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিচ্ছি।’

কাতার সরকারের নির্দেশনা মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং জনসমাগম যাতে না হয়, সেভাবে এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে বিতরণ করা এই খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে, প্রতি শ্রমিকের জন্য ৫ কেজি চাল, ২ কেজি ডাল, ১ কেজি পেয়াজ, ২ কেজি আলু ও একটি সাবান।

ড. মুস্তাফিজ জানান, এ পর্যন্ত আমরা সাহায্যপ্রার্থী ৭০০ বাংলাদেশি কর্মীর তালিকা করেছি। এদের মধ্যে প্রায় সাড়ে চারশ লোককে আপাতত এসব খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হচ্ছে।

দূতাবাসের শ্রম শাখা থেকে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এক চিঠিতে জানানো হয়েছে, কাতারে ২০ হাজার লোককে জনপ্রতি ২০০ রিয়াল করে আর্থিক সহায়তা প্রদান করতে হলে ৯ কোটি টাকার উপরে প্রয়োজন। তবে এ বিষয়টি পুরোপুরি বাংলাদেশ সরকারের সক্ষমতার উপর নির্ভর করছে বলে জানান শ্রম কাউন্সেলর।

বাংলাদেশ কমিউনিটির অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে অসহায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং নানাভাবে তাদেরকে সাহায্য-সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে একে অপরের সহযোগিতায় এগিয়ে আসতে হবে এবং ধৈর্য্য ধারণ করে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে তাছাড়া যেকোনো পরিস্থিতিতে অসহায় কর্মীদের সহায়তার জন্য দূতাবাসের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন কাতারস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস।

যে সকল কর্মী খাদ্য সহায়তা গ্রহণ থেকে বাদ পড়েছেন বা এখনো সহায়তা পান নাই, তাদের শিগগির যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করেছে দূতাবাস।