• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
  • ||
  • আর্কাইভ

হাজীগঞ্জে বিশাল আয়োজনে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা

অতীতের মতো হাজীগঞ্জে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার চেষ্টা হয়েছে

আমাদের কেউ যদি জড়িত থাকে, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে : মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি

প্রকাশ:  ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৪০ | আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১১:০১
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

 অতীতের মতো করে সেদিন হাজীগঞ্জে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির চেষ্টা করা হয়েছে। এর পেছনে একটি অশুভ শক্তি কাজ করছে। আমি হাজীগঞ্জবাসীকে অনুরোধ করবো তারা যাতে এই জাতীয় ঘটনায় সতর্ক থাকে। ২০০১ সালে আমাদের নির্বাচনের সময় সেই রামপুরে হামলা হয়েছে। আজকে সেই একই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। যেহেতু বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে, তাই সেই বিষয়ে আমি কথা বলবো না। শুধু বলবো, হাজীগঞ্জের ঘটনার সাথে আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠী জড়িত থাকতে পারে। এ বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্র ঘোষিত নির্দেশনা অনুযায়ী দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক সহিংসতা, জ্বালাও-পোড়াও কর্মকা-ের প্রতিবাদে ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে হাজীগঞ্জে অনুষ্ঠিত শান্তি সম্প্রীতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রার প্রধান অতিথি হিসেবে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি।
সমাবেশে প্রধান অতিথি  বলেন, গত ১৩ অক্টোবর হাজীগঞ্জে ঘটে যাওয়া অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার সাথে যারা জড়িত, তারা সংবিধান লঙ্ঘন করেছে। তারা ধর্মকে ব্যবহার করে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করতে চায়। এরাই ৭১-এর পরাজিত শত্রু। অপরাধীদেরকে চিহ্নিত করে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা যদি সবাই মিলে তাদের প্রতিহত করি, তাহলে ভবিষ্যতে অপরাধ করার সাহস করবে না। এর মধ্যে আমাদের কেউ যদি জড়িত থাকে, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।
হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারে অনুষ্ঠিত বিশাল সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ আহসান হাবীব অরুণের সভাপ্রধানে মেজর রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, আমরা উদার রাজনীতি করি, তাই বলে দুর্বল নই। মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি যারা আছে, তারা আত্মাহুতি দিতে জানে, পরাজয় নয়। এই আত্মাহুতি দিয়েই বিজয় নিশ্চিত করবে এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।
এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র আ.স.ম. মাহবুব-উল আলম লিপন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবু তাহের, হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদের পেশ ইমাম ও খতিব মুফতি আব্দুর রউফ, উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি রোটাঃ রুহিদাস বণিক, হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মাসুদ আহাম্মদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব সেলিম মিয়া, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সৈয়দ আহম্মদ খসরু প্রমুখ।
জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন ও হাজীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মুন্সী মোহাম্মদ মনিরের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য শেষে সাংসদ মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমের নেতৃত্বে শান্তি শোভাযাত্রাটি হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজার থেকে বের হয়ে কুমিল্লা-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সমাবেশ স্থলে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যানদের পক্ষে মানিক হোসেন প্রধানীয়া, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহিদুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মাসুদ ইকবাল, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন সোহেল, ইউনিয়ন যুবলীগ নেতাদের পক্ষে মজিবুর রহমান, পৌর ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সোহেল আলম বেপারী, সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাছান রাব্বিসহ হাজীগঞ্জ উপজেলা, পৌর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের কয়েক হাজার নেতা-কর্মী।

সর্বাধিক পঠিত