• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ৯ বৈশাখ ১৪২৮
  • ||
  • আর্কাইভ

চাঁদপুরে ৭ লাখ মিটার নিষিদ্ধ কারেন্টজাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস

প্রকাশ:  ০৬ মার্চ ২০২১, ০৯:১০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

 জাটকা রক্ষায় মার্চ-এপ্রিল দুই মাস চাঁদপুর মেঘনা ও পদ্মা নদীর অভয়াশ্রম এলাকায় সকল ধরণের মাছ আহরণ নিষিদ্ধ। ১ মার্চ থেকে ৫ মার্চ বিকেল পর্যন্ত মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল থেকে হাইমচর চরভৈরী পর্যন্ত জেলা টাস্কফোর্সের অভিযানে ৭লাখ মিটার নিষিদ্ধ কারেন্টজাল জব্দ হয়েছে। জব্দকৃত কারেন্টজাল মৎস্য কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।

শুক্রবার (৫ মার্চ) বিকেলে চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এসব তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তার প্রেরিত তথ্যে জানাগছে, গত ৫ দিনে জেলা ও উপজেলা টাস্কফোর্স অভিযান চালিয়ে ৯ জন জেলেকে জাটকা ধরা অবস্থায় আটক করেন। এদেরকে পৃথক ভ্রাম্যমান আদালতে ২৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

হাইমচর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, বৃহস্পতি ও শুক্রবার দু’দিনে হাইমচর উপজেলা মৎস্য বিভাগ ও কোস্টগার্ড যৌথ অভিযান চালিয়ে ৬০ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্টজাল জব্দ করেছেন। একই সময় জব্দ হয়েছে ৩০ কেজি জাটাকা। জব্দকৃত জাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে এবং জাটকাগুলো এতিমখানায় বিতরণ করা হয়।

চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আসাদুল বাকি জানান, গত ৫ দিনে জেলা টাস্কফোর্স ৫টি ভ্রাম্যমান আদালত ও ৪২টি অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় ১৫৮ মেট্টিক টন জাটকা ও ৭ লাখ মিটার কারেন্টজাল জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত কারেন্টজালের আনুমানিক মূল্য ১ কোট ৪০লাখ টাকা।

তিনি আরো বলেন, নদীতে প্রশাসনের কঠোর অবস্থান থাকায় জেলেরা জাটকা ধরার জন্য সাহস পাচ্ছে না। মতলব উত্তর ও হাইমচরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে দু’টি টিম অভিযান পরিচালনা করছেন। এছাড়াও পৃথকভাবে কাজ করছে কোস্টগার্ড ও নৌ-পুলিশ।