• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭
  • ||
  • আর্কাইভ

ব্রেকিং নিউজ

নৌকার মেয়র নির্বাচিত হলেও জেলা আওয়ামী লীগের কোনো অভিনন্দন নেই!

প্রকাশ:  ১৫ অক্টোবর ২০২০, ২২:১৮
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে পাঁচদিন হলো। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হলেও জেলা আওয়ামী লীগ থেকে এখনো পর্যন্ত নবনির্বাচিত মেয়রকে অভিনন্দন জানানো হয়নি। অথচ বিজয়ী হওয়ার পর মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েলকে অসংখ্য ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, সমমনা রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন সামাজিক  সাংস্কৃতিক সংগঠন, সাংবাদিকসহ সুশীল সমাজের শত শত মানুষজন ও সাধারণ পৌর নাগরিকরা অভিনন্দন  জানিয়ে আসছেন। মাননীয়  শিক্ষামন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের চার চারবারের নির্বাচিত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডাঃ দীপু মনির পক্ষ থেকেও অভিনন্দিত করা হয়েছে নবনির্বাচিত মেয়রকে। এখনো প্রতিদিন চাঁদপুর পৌরসভার শত শত মানুষ অভিনন্দন জানাচ্ছেন, ফুলে ফুলে সিক্ত করছেন মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েলকে। অথচ যে দলের মনোনয়ন পেয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে তিনি নির্বাচিত হলেন, সে দল জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এখনো তাঁকে অভিনন্দন না জানানোয় দলের মধ্যে নানা গুঞ্জন ও চরম ক্ষোভের সৃষ্টি তো হয়েছেই, পাশাপাশি সাধারণ পৌরবাসীও হতবাক।  জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিক কোনোভাবেই অভিনন্দন জানানো হয়নি দলের নির্বাচিত মেয়রকে। এছাড়া নির্বাচনে সাধারণ ভোটার এবং দলের সমর্থক কর্মী যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করে এবং ভোট দিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করলো, সে নাগরিকদেরও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়নি দলের পক্ষ থেকে। তবে জিল্লুর রহমান জুয়েল বিজয়ী হওয়ার পর পরই নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু ভোটার তথা পৌর নাগরিকদের অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা  জানিয়েছেন। তিনি এই কৃতজ্ঞতা  স্থানীয় পত্রিকাগুলোর মাধ্যমে এবং সামাজিক যোগাযোগে তা করেছেন।
উল্লেখ্য, এ নির্বাচন হওয়ার কথা ছিলো গেলো ২৯ মার্চ। কিন্তু তখন বিএনপি প্রার্থীর মৃত্যু এবং পরবর্তীতে মহামারী করোনার কারণে প্রায় সাড়ে ৬ মাস পর গত ১০ অক্টোবর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে জিল্লুর রহমান জুয়েল আওয়ামী লীগ সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থী। যিনি জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক। তিনি এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর চেয়ে ৩১ সহ¯্রাধিক বেশি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন।

 

সর্বাধিক পঠিত